শনিবার থেকে ‘বটতলা রঙ্গমেলা ২০১৯’

299
0

শনিবার (১৬ নভেম্বর) থেকে আগারগাঁও মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে তৃতীয় বারের মতো শুরু হতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক নাট্যোৎসব “বটতলা রঙ্গমেলা ২০১৯”। এদিন সন্ধ্যা ৬টায় উৎসবের উদ্বোধন করবেন নাট্যজন আতাউর রহমান। প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন ড. মো: আবু হেনা মোস্তফা কামাল, এনডিসি, সচিব, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়। বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন তিনজন তরুন নাট্যকার – সাধনা আহমেদ, রুমা মোদক ও শুভাশিস সিনহা।

১১ দিন ব্যাপী আন্তর্জাতিক এই নাট্যোৎসবে প্রতিদিন ‘মূল রঙ্গমঞ্চে’ সন্ধ্যা ৭.৩০ থেকে বটতলাসহ বাংলাদেশের ২টি ও বিদেশের ৮টি দল তাদের নাটক পরিবেশন করবে। অংশগ্রহনকারী দেশগুলো হলো- বাংলাদেশ, ভারত, স্পেন, ইরান ও নেপাল।

প্রতিদিন বহিরাঙ্গনে ‘নাদিম মঞ্চে’ থাকছে নাটক, গান, কবিতা, মূকাভিনয়, নাচসহ বিভিন্ন আনন্দ আয়োজন, যা মুলত: শুরু হবে সন্ধ্যা ৬.০০ টায়।

গতবারের মত এবারও থাকছে দেশের ৮টি বিভাগের ৮ নাট্যজনকে সম্মাননা প্রদান- যারা খুব নীরবে-নিভৃতে দীর্ঘদিন ধরে নাট্যচর্চাকে এগিয়ে নিতে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন এবং করছেন। আপনারা জানেন যে, বটতলা রঙ্গমেলা উৎসবে প্রতিবারই মঞ্চের একজন গুনী শিল্পীকে আজীবন সম্মাননা প্রদান করে থাকে। এবারে ২৬ নভেম্বর উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানের দিন আজীবন সম্মাননা প্রদান করা হবে খ্যাতিমান অভিনেতা, নাট্যকার, নির্দেশক ‘মামুনুর রশীদ’কে।

বটতলা এবারের উৎসবে যুক্ত করতে যাচ্ছে আরেকটি ভিন্ন মাত্রা। বিভাগীয় নাট্যজনদের পাশাপাশি এবার পর্দার অন্তরালের ১০ জন মানুষকে সম্মান জানানো হবে, যারা দীর্ঘদিন ধরে মঞ্চ নাটককে সফল করতে অন্তরালে থেকে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন প্রতিদিন।

বটতলা রঙ্গমেলার মূল বাণী:
এখন সময় যূথতার, মেলবন্ধনের। প্রকৃতিতে- মানুষে, মানুষে- মানুষে, দেশে দেশে ঐক্যতান বাজলেই কেবল মানবতা আর ধরিত্রীর প্রাণভোমরা একসাথে টিকে যাবে- জিতে যাবে শুভবোধ! জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে হালের সম্মুখযোদ্ধা কিশোরপ্রাণেরা যেমন করে ভেঙে গেছে নৃশংস নৈঃশব্দ তেমনি তাদের সাহসে সাহস মিলিয়ে বিশ্বের পক্ষে, প্রাণের পক্ষে দাঁড়াবার সুনন্দ সাহস চাই আজ। আজকের পথ একটাইঃ উচ্চে তুলে শির- কন্ঠে দিয়ে শান সৃজনে- আনন্দে আমরা ফেরাবই ধ্বংস থেকে সৃষ্টির পথে; প্রাণে প্রাণ মেলাবোই গোলকের সব প্রান্ত ছুঁয়ে- এই রঙ্গভাবনা নিয়ে ৩য় বারের মত নাট্যমোদী দর্শকের জন্য আসছে বটতলা রঙ্গমেলা ২০১৯।