মেলা থেকে ফ্ল্যাট- প্লট কিনে কেউ প্রতারিত হবে না

532
0

রাজধানীতে শুরু হচ্ছে পাঁচ দিনব্যাপী ‘রিহ্যাব উইন্টার ফেয়ার-২০১৯’। মেলায় যে সব প্রতিষ্ঠান তাদের পন্য প্রদর্শিত করবে সেগুলো রাজউক এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কর্তৃক অনুমোদিত। সুতরাং রিহ্যাব ফেয়ারে কোনো ক্রেতা ফ্লাট বা প্লট কিনে প্রতারিত হবে না বলে জানিয়েছেন রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (রিহ্যাব)-এর প্রেসিডেন্ট আলমগীর শামসুল আলামিন (কাজল)। পাঁচ দিনব্যাপী রিহ্যাব উইন্টার ফেয়ার-২০১৯ শুরু হচ্ছে ২৪ ডিসেম্বর আর শেষ হবে ২৮ ডিসেম্বর। প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, রিহ্যাব ফেয়ারে এ বছর ২৩০টি স্টল থাকছে। এ বছর ৩০টি বিল্ডিং ম্যাটেরিয়ালস ও ১৪ অর্থলগ্নীকারী প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করবে।

পাঁচ দিনব্যাপী রিহ্যাব উইন্টার ফেয়ার-২০১৯ শুরু হচ্ছে ২৪ ডিসেম্বর আর শেষ হবে ২৮ ডিসেম্বর। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে রবিবার রাজধানীর সুন্দরবন হোটেলে এক সংবাদ সম্মেলন করে রিহ্যাব প্রেসিডেন্ট আলমগীর শামসুল আলামিন (কাজল) এ তথ্য জানান।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, রিহ্যাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট (প্রথম) লিয়াকত আলী ভূঁইয়া, ভাইস প্রেসিডেন্ট (২) মো. আনোয়ারুজ্জামান, ভাইস প্রেসিডেন্ট কামালা মাহমুদ, ভাইস প্রেসিডেন্ট (ফিন্যান্স) এবং স্ট্যাডিং কমিটির চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) প্রকৌশলী মোহাম্মদ সোহেল রানা প্রমুখ। এ বছর রিহ্যাব উইন্টার ফেয়ার ২০১৯ এর উদ্বোধনী অধিবেশনে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকছেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ. ম. রেজাউল করিম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত সচিব মোঃ শহীদ উল্লাহ খন্দকার।

সংবাদ সম্মেলনে রিহ্যাব সভাপতি বলেন, ক্রেতাদের সুবিধার কথা মাথায় রেখে ১৯ বছর ধরে সফল ভাবে রিহ্যাব ফেয়ারের আয়োজন করে আসছি। বিগত আয়োজনের ধারাবাহিকতায় এবারও একটি সফল ফেয়ার আমরা উপহার দিতে পারব। আমাদের সদস্য এবং ক্রেতাদের মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরি করতে এই ফেয়ার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। রিহ্যাব ফেয়ার সাধ ও সাধ্যের মধ্যে মনের মত ফ্ল্যাট বা প¯œট খুঁজে নিতে ক্রেতাদের সাহায্য করবে।

নীতিনির্ধারণী কিছু সমস্যার কারণে আবাসন খাত সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, আবাসন ব্যবসার সংকটময় অবস্থা থেকে ধীরে ধীরে এই খাত বেরিয়ে আসছে। সরকার সরকারী চাকুরিজীবীদের জন্য ভতুর্র্কি দিয়ে ৫ শতাংশ সুদের গৃহঋণ চালু করার পর এই খাত স্থবিরতা থেকে বেরিয়ে আসার চেষ্টায় রয়েছে। এছাড়া গত মাসে ফ্ল্যাট কেনার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক সর্বোচ্চ দুই কোটি টাকা পর্যন্ত গৃহঋণ দেয়ার প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। যেটা আগে এক কোটি বিশ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ছিল। এটা অবশ্যই আবাসন খাতের জন্য ইতিবাচক।

এই ব্যবস্থায় ক্রেতারা লাভবান হবেন। আবাসন খাতে নানা প্রতিবন্ধকতা তুলে ধরে তিনি বলেন, আবাসন ব্যবসায় এখনও উচ্চ নিবন্ধন ব্যয় । নিবন্ধন ব্যায় কমানোর কথা থাকলেও এখনো কমানো হয়নি। সব নাগরিকের জন্য দীর্ঘ মেয়াদী ঋণের ব্যবস্থা না থাকা, এবং ব্যাংক ঋণের উচ্চ হার এই খাতের বড় প্রতিবন্ধকতা। চলতি অর্থ বছরের জাতীয় বাজেট ঘোষণার অর্থমন্ত্রী নিবন্ধন ব্যয় কমানোর ঘোষণা দিলেও এখন পর্যন্ত আবাসন খাতে নিবন্ধন ব্যয় কমানোর কোন প্রজ্ঞাপন জারি হয়নি। জাতীয় প্রবৃদ্ধিতে প্রায় ১৫ শতাংশ ভূমিকা রাখা আবাসন শিল্পে নিবন্ধন ব্যয় কমিয়ে ৬-৭ শতাংশে নিয়ে আসলে এ খাত অর্থনীতিতে আরো অবদান রাখতে পারবে বলে আমাদের বিশ্বাস।

মেলার প্রথম দিন ক্রেতা-দর্শনার্থীরা দুপুর ২টা থেকে মেলায় প্রবেশ করতে পারবেন। বাকি দিনগুলোতে সকাল ১০ থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত ক্রেতা দর্শনার্থীরা প্রবেশ করতে পারবে। মেলায় দুই ধরনের টিকিট থাকছে। একটি সিঙ্গেল এন্ট্রি অপরটি মাল্টিপল এন্ট্রি। সিঙ্গেল টিকিটের প্রবেশ মূল্য ৫০ টাকা। আর মাল্টিপল এন্ট্রি টিকিটের প্রবেশ মূল্য ১০০ টাকা। মাল্টিপল এন্ট্রি টিকিট দিয়ে একজন দর্শনার্থী মেলার সময় ৫ বার প্রবেশ করতে পারবেন। এন্ট্রি টিকিটের প্রাপ্ত সম্পন্ন অর্থ দুঃস্থদের সাহায্যার্থে ব্যয় করা হবে। মেলার এন্ট্রি টিকিটের রাফ্রেল ড্র তে থাকছে আকর্ষণীয় সব মূল্যবান পুরস্কার। এ বছর মেলার শেষ দিন ২৮ ডিসেম্বর রাত ৯ টায় রাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হবে।

প্রসঙ্গত, ২০০১ সাল থেকে ঢাকায় আবাসন মেলা শুরু করে রিহ্যাব। এছাড়া চট্টগ্রামে ১২ টি মেলা সফল ভাবে সম্পন্ন করেছে রিহ্যাব। রিহ্যাব ২০০৪ সাল থেকে বিদেশে হাউজিং মেলা আয়োজন করে আসছে। এ পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে ১২ টি, যুক্তরাজ্যে, দুবাই, ইতালীর রোম, কানাডা, সিডনী, কাতারে ১টি করে এবং দুবাইতে ২টি “রিহ্যাব হাউজিং ফেয়ার” সফল ভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এ সব মেলা আয়োজনের মাধ্যমে রিহ্যাব দেশে ও বিদেশে গৃহায়ন শিল্পের বাজার সৃষ্টি এবং তা প্রসারের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখছে।