নোবেল ইস্যুতে নামছে সাইবার ক্রাইম ইউনিট

0
64

তরুণ কণ্ঠশিল্পী মাঈনুল ইসলাম নোবেলের পোস্ট নিয়ে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ১৪ মে সংগীতশিল্পী জেমস, ইথুন বাবু, তাপসের মান হানিকারক পোস্ট পাওয়া যায় নোবেলের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে।

সেদিন নোবেল দাবি করেন তার ফেসবুক পেজ হ্যাকড হয়েছে। পরদিন ১৫ মে তিনি তার ফেসবুক পেজ ফিরে পান। ১৬ মে সুরকার আহমেদ হুমায়ূনের ক্যারিয়ার শেষ করে দেয়ার হুমকি দেন নোবেল।

ডিএমপির সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগের অতিরিক্ত ডেপুটি কমিশনার নাজমুল ইসলাম বলেন, এই কথাগুলো ভিস্যুয়াল সিকিউরিটি অ্যাক্ট মোতাবেক অপরাধ। তবে যার মানহানী হয়েছে তিনি অভিযোগ করলে নিশ্চই আইনি পদক্ষেপ নেয়া সম্ভব।

নোবেলের পেজে পাওয়া সেসব পোস্ট নিয়ে কেউ অভিযোগ করেছেন কিনা তা জানান নি নাজমুল ইসলাম। তবে তার ফেসবুকে তিনি জানিয়েছেন, আইনের আলোকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

তিনি ফেসবুকে লেখেন, ‘গায়ক নোবেল ও তার ভেরিফাইড পেজের আপত্তিকর ও অনভিপ্রেত পোস্ট নিয়ে আমরা ইতোমধ্যেই অবগত। বাংলাদেশের প্রচলিত আইন মোতাবেক ও সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি বা ব্যক্তিবর্গের সাথে মতামত, সম্মতি ও পরামর্শক্রমে এই বিষয়ের একটা বিশ্বাসযোগ্য ও স্থায়ী সামধানের জন্য আমরা আইনের আলোকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করছি।’

সাংবাদিককে ‘জেলে পুরবেন’ বলে হুমকি দেয়ার পর ১৭ মে নোবেলের নামে জিডি হয়। তার পর দিন থেকে প্রথমে সাংবাদিক ও পরে জেমসের কাছে ক্ষমা চেয়ে স্ট্যাটাস দেন নোবেল।