নিখোঁজের ৩দিন পর মৃতদেহ উদ্ধার

346
0

রাজধানীর হাজারীবাগে পানি থেকে নিখোঁজের ৩দিন পর শেখ বাদল মিয়া (৫২) নামে এক ব্যবসায়ীর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মঙ্গবার বেলা ১২টার দিকে পুলিশ ঝাউচর নদীর পানি থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করে। পরে মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠায়। মৃতদেহের গলায় সাথে রশি দিয়ে দুটি ইট বাধা ছিলো।

স্বজনরা জানায়, তার বাড়ি মুন্সিগঞ্জ লৌহজং উপজেলার কনকসাহা গ্রামে। তার পিতা মৃত শেখ আইয়ুব আলী। ৩সন্তানের জনক বাদল স্ত্রী শাহনাজ বেগম সহ রায়েরবাজার সুলতানগঞ্জ ১৭১/১ নম্বর বাসায় থাকতো। রায়েরবাজারে সোনালী ট্রেডার্স নামে চাউলের ব্যবসা আছে তার।

হাজারীবাগ থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) আব্দুর রহমান জানান, গত ২১ ফেব্রুয়ারী সন্ধ্যার পর েেক বাদল মিয়া নিখোঁজ ছিলো। ২২ তারিখে থানায় পরিবার একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করে। আজ বেলা ১২ টার দিকে ঝাউচর নদীর পাড় থেকে বাদলের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। মৃতদেহটির গলায় পাটের রশি দিয়ে দুইটি ইট বাঁধা ও কোমরে রশি বাধা ছিলো। মৃতদেহটি কিছুটা পচে ফুলে গেছে। ধারণা করা হচ্ছে দুর্বৃত্তরা তাকে শ্বাষরোধে হত্যা করে লাশ গুমের জন্য শরীরে ইট বেধে পানিতে ফেলে গেছে।এ ঘটনায় কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

নিহতের ভাতিজা শেখ মনির হোসেন জানান, গত ২০ ফেব্রুয়ারী স্ত্রী শাহনাজ তার সন্তানদের নিয়ে গ্রামের বাড়িতে যায়। পরদিন ২১ফেব্রুয়ারী রাতে বাদলও গ্রামের বাড়ি যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাসা থেকে বের হয়। এরপর থেকে ফোন বন্ধ পাওয়া যায় তার। অনেক খোঁজাখুঁজি করে তাকে না পেয়ে ২২ ফেব্রুয়ারি হাজারীবাগ থানায় একটি জিডি করে। সর্বশেষ আজ মঙ্গলবার সকালের ঝাউচার নদীতে তার মৃতদেহ পাওয়া যায়। তাদের জানামতে বাদলের সাে কোন বিরোধ ছিল না।