নগদ লভ্যাংশে নমনীয় হবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক

285
0

গভর্নরের সঙ্গে বৈঠক শেষে বিএসইসির চেয়ারম্যান

পুঁজিবাজার ও মুদ্রাবাজারের উন্নয়নে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ও বাংলাদেশ ব্যাংক যৌথভাবে কাজ করবে। এছাড়া শেয়ারবাজারের ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের বিষয় বিবেচনা করে নগদ লভ্যাংশ বিতরণের কেন্দ্রীয় ব্যাংক নমনীয় হবে বলে জানিয়েছেন পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নতুন চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম।
সোমবার বিকেলে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবিরের সঙ্গে বৈঠক শেষে এ কথা জানান তিনি। বৈঠকে পুঁজিবাজার ও মুদ্রাবাজারের উন্নয়নে কেন্দ্রীয় ব্যাংক ও বিএসইসি যৌথভাবে কাজ করবে বলে বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে।
বিশেষ করে করোনাকালীন ঋণ সংকট মোকাবেলায় বাংলাদেশ ব্যাংক এবং বিএসইসি নিবিড়ভাবে কাজ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ কাজটিকে সামনে আগাতে দুই পক্ষেরই একজন করে ফোকাল পয়েন্ট নিয়োগ দেয়া হয়েছে। যারা প্রতি মাসেই একে অপরের সাথে পরামর্শমূলক বৈঠক করবেন এবং সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত নিবেন।
বিএসইসির চেয়ারম্যান বলেন, ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীরা যাতে তালিকাভুক্ত ব্যাংকগুলোর কাছ থেকে ক্যাশ ডিভিডেন্ড পেতে পারে সে বিষয়ে সহযোগিতামূলক নির্দেশনা বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে আসতে পারে। সেপ্টেম্বরের আগে কোনো ব্যাংক নগদ লভ্যাংশ বিতরণ করতে না পারলেও ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের জন্য ছাড় দেওয়া হতে পারে বলে জানান তিনি। এছাড়াও প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়নে কোনো ধরনের সহযোগিতার প্রয়োজন হলে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন সেই উদ্যোগ নিতে প্রস্তুত বলেও জানিয়েছেন নতুন চেয়ারম্যান।
উল্লেখ, গত ১২ মে বাংলাদেশ ব্যাংক করোনা পরিস্থিতিজনিত অর্থনৈতিক বাস্তবতার নিরিখে তফসিলি ব্যাংকগুলোর লভ্যাংশ ঘোষণার সীমা বেঁধে দিয়ে এক প্রজ্ঞাপন জারি করে। তাতে প্রস্তাবিত লভ্যাংশকে মূলধনের সঙ্গে সংযুক্ত করে দেয়া হয়। একই সঙ্গে নগদ লভ্যাংশ ঘোষণার ক্ষেত্রে সেপ্টেম্বর মাসের আগে ওই লভ্যাংশ বিতরণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।
অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বিএসইসির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নেয়ার পর সোমবার প্রথম বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে কোনো বৈঠক করছেন। অবশ্য বিএসইসি এবং বাংলাদেশ ব্যাংক-উভয় প্রতিষ্ঠানটি এটিকে সৌজন্য সাক্ষাত হিসেবে অভিহিত করেছে। তবে এ সৌজন্য সাক্ষাতকালেই পুঁজিবাজার ও মুদ্রা বাজারের বিভিন্ন ইস্যু এবং বিএসইসি ও বাংলাদেশ ব্যাংকের পারস্পরিক সহযোগিতার নানা দিক নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে জানা গেছে।