তারিক আনাম ও সারিকার ক্ষমা নাই

422
0

সারিকাকে নিয়ে কাজ করতে গেলে পরিচালকদের ভয় থাকে কারন কখন কাকে ফাঁসিয়ে দেয় তার নিশ্চয়তা নেই। এরপরও কাজী ছালাম গল্পের প্রয়োজনে তাকে নিলেন মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক এ নাটকে । তার কথায় তারিক আনামের কথা শুনে সারিকা উচ্ছসিত হলেন এবং সময় মতই সেটে উপস্থিত হয়েছে আমিও তাকে কাস্ট করার আগে বলে নিয়েছি যদি আপনি নিশ্চয়তা দেন তবেই সিডিউলড দেন নচেত আমাকে বিকল্প কিছু ভাবতে হবে। সারিকা আমাকে আশস্ত করলেন এবং সময় মত এসে সুন্দর ভাবেই কাজটি করলেন।

নাটকের পটভুমি মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক। একজন বাবা সব সময় তার মেয়েকে নিয়ে উতকন্ঠিত । তিনি সব সময় কল্পনা করেন -তার মেয়েকে বখাটেরা উত্যক্ত করছে ,তাকে কেউ কিডন্যাপ করছে কিংবা মেয়েটি যে কোন সময় ধর্ষিত হচ্ছে। তাই তিনি সব সময় তাকে চোখে চোখে রাখতে চায়। এ নিয়ে তার স্ত্রী সাবিরী আলম এবং কন্যা হাফিয়ে উঠে, অতি নিয়ম শৃঙ্খলে মেয়েটির ব্যক্তি স্বাধীনতাও লোপ পায়। একদিন তার স্ত্রী কন্যা তাকে জোর করে একজন মানষিক ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান। ডাক্তার তার অবস্থা পর্যবেক্ষন করে বুঝে নেয় -উনি ৭১ সালে মেয়েদেরকে যেভাবে নির্যাতন করেছিলেন এখন নিজের মেয়ের অবস্থাও সেরুপ কল্পনা করছেন। ঘটনাক্রমে আড়াল থেকে সব কিছু জেনে যায় তার মেয়ে। নিজের প্রতি তার ঘৃনা চলে আসে –এমন বাবাকে সে কখনও ক্ষমা করতে পারবে না।

এ ব্যাপারে পরিচালক কাজী ছালাম বলেন, নাটকের চরিত্রের সাথে তারিক আনাম খাঁন এতটাই মিশে গেছেন -আমি শুধু চরিত্রটি উপভোগই করে গেলাম। উনি আমাকে বললেন -ছালাম নাটকেল গল্পটি ভালো তুমি এটি পুরুস্কারের জন্য জমা দিও। উনার এ কথা শুনে আমি ধন্য ।

নাটকটিতে আরো অভিনয় করেছেন এফ এস নাঈম, শিশির আহমেদ, আসিফ নজরুল ,মুকুল জামিল,জাহিদ চৌধরী প্রমুখ। রচনায় মতিন সাগর ,ক্যামরায়-আদিত্য মনির। সহকারী পরিচালক আবদুল্লাহ আল রাহাত প্রযোজনা : আবু জায়েদ । প্রযোজনা সূত্র জানা গেছে, আগামী ১৬ই ডিসেম্বর এটিএন বাংলায় প্রচারের সম্ভবনা রয়েছে।