ড. আতিউর রহমানের আবেগঘন বার্তা

0
313

“কাজেমী ভাইয়ের এভাবে চলে যাওয়া কিছুতেই মেনে নিতে পারছি না। আজও বিকেলে ভাবীর সাথে কথা বলে জানলাম তাঁকে আইসিইউতে নেয়া হয়েছে এবং তিনি কথা বলছিলেন। পাঁচটার একটু বাদে তিনি সবাইকে ছেড়ে চলে গেলেন।তিনি শুধু একজন নিপাট ভলো মানুষ ও দক্ষ কেন্দ্রীয় ব্যাংকারই ছিলেন না। ছিলেন একটি প্রতিষ্ঠান। কি গভীর ছিল তাঁর বহু মাত্রিক জ্ঞানের ভান্ডার তা অনেকেরই অজানা।কেন্দ্রীয় ব্যাংকিং ও আর্থিক থাত বিষয়ক এক চলন্ত এনসাইক্লোপিডিয়া আল্লাহ মালিক কাজেমী এ সময়টায় চলে যাবার কারনে যে শূন্যতা তেরি হলো তা পূরন হবার নয়। বিশেষ করে করোনা সংকট থেকে আমাদের অর্থনীতিকে পুনরুদ্ধারের এই দু:সময়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের জন্য তাঁর প্রাজ্ঞ পরামর্শ কতোটা প্রয়োজনীয় ছিল তা বলে শেষ করা যাবে না। আমি ব্যক্তিগত ও পেশাগত ভাবে তাঁর কাছে কি পরিমান ঋনী তা ভাষায় প্রকাশ করতে পারছি না।তিনি ছিলেন আমার পরম শুভাকাঙ্খী ও অভবাবক।ছিলেন তিনি আমার আত্মার আত্মীয়।অন্তর্ভুক্তিমূলক এবং টেকসই অর্থায়ন কোশলটি তাঁর পরামর্শ ছাড়া এগিয়ে নিয়ে যাওয়া আমার পক্ষে কখনোই সম্ভব হতো না। বৈদেশিক মুদ্রা বিষয়ে তাঁর জ্ঞানের কোনো সীমা পরিসীমা ছিল না। আমার মতে বাংলাদেশের ইতিহাসে এমন পারদর্শী ও প্রজ্ঞাবান কেন্দ্রীয় ব্যাংকার আর একজনও আসেন নি। তিনি যে ব্যক্তিগত ও পেশাদারিত্বের আদর্শ রেখে গেছেন তা অনুসরণ করাই হবে তাঁর প্রতি সর্বোচ্চ শ্রদ্ধা প্রদর্শনের সামিল।
আমি তাঁর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি। আর তাঁর পরিবারের সদস্যদের ও বাংলাদেশ ব্যাংকের মর্মাহত সহকর্মীদের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি।
আতিউর রহমান
সাবেক গভর্নর।