ডেবিট কার্ডের জন্য পেপারলেস ‘পিন’

271
0

গ্রিন ব্যাংকিং এর প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে রবিবার ডেবিট কার্ডধারীদের জন্য পেপারলেস বা কাগজবিহীন পার্সোনাল আইডেন্টিফিকেশন নম্বর (পিন) ব্যবস্থা চালু করলো ব্র্যাক ব্যাংক।

কার্ডের জন্য পিন দেয়া এতদিন কাগজ-ভিত্তিক একটি জটিল প্রক্রিয়ার ওপর নির্ভরশীল ছিল। এই পদ্ধতিটিকে বদলে দিয়ে কাগজবিহীন করার ফলে ব্র্যাক ব্যাংকের গ্রাহকদের জন্য এখন খুব সহজেই আর সুরক্ষিতভাবে কার্ডের পিন বুঝে পাওয়া সম্ভব হবে।

ব্র্যাক ব্যাংকের গ্রাহক এখন তাদের ডেবিট কার্ড হাতে পাওয়ার পর ফোন ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে নিজেই নিজের পিন তৈরি করে নিতে পারবেন।

কার্ড সংশ্লিষ্ট গ্রাহকের রেজিস্টার্ড ফোন নম্বর থেকে ব্র্যাক ব্যাংকের কল সেন্টারে (১৬২২১ বা +৮৮০৯৬১১২২৩৩৪৪, +৮৮০২৫৫৬৬৮০৫৫-৬) ফোন করে কল সেন্টার এজেন্টের সাহায্যে কার্ড এক্টিভেট বা সচল করে নিজের পছন্দমতো পিন সেট করে নেয়া যাবে। কাগজ-ভিত্তিক পিন সরবরাহ ব্যবস্থার জন্য গ্রাহকদের প্রায়ই বিভিন্ন কারণে অপেক্ষা করতে হতো। এই নতুন প্রক্রিয়ার ফলে ব্র্যাক ব্যাংকের গ্রাহক পাবেন সুরক্ষিত, দ্রুত ও ঝামেলামুক্ত ব্যাংকিংয়ের অভিজ্ঞতা।

ব্র্যাক ব্যাংকের হেড অব রিটেইল ব্যাংকিং মাহিউল ইসলাম এই ব্যবস্থা সম্পর্কে বলেন, সম্ভবপর সেবাগুলোকে ডিজিটাল করে তোলার মাধ্যমে গ্রাহকের ব্যাংকিং অভিজ্ঞতাকে আরো উন্নত ও স্বাচ্ছন্দ্যময় করতে ব্র্যাক ব্যাংক প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। ডেবিট কার্ডের জন্য পেপারলেস পিন জেনারেশন আমাদের এমন একটি গ্রিন ব্যাংকিং উদ্যোগ, যা গ্রাহকদের জন্যও যথেষ্ট সুবিধাজনক হবে। অনেক সহজ হয়ে যাওয়া এই প্রক্রিয়ায় কাগজ-ভিত্তিক পিন মুদ্রণের মতো ম্যানুয়াল প্রক্রিয়ার দরকার হয় না বলে কার্বনের উপস্থিতি না বাড়িয়ে পরিবেশ রক্ষায়ও আমরা কিছুটা অবদান রাখতে পারবো। তবে, আমাদের লক্ষ্য সামনের সময়ে গ্রাহকদের এমন আরোও উদ্ভাবনী ব্যাংকিং সমাধান উপহার দেয়া।

ব্র্যাক ব্যাংক, গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ব্যাংকিং অন ভ্যাল্যুজ (জিএবিভি)-এর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। ২০০৯ সালে প্রতিষ্ঠিত এই প্রতিষ্ঠানটি ব্যাংকিং সেক্টরে শীর্ষস্থানীয় নেতৃত্বের একটি বৈশ্বিক নেটওয়ার্ক, যা ব্যাংকিং খাতে গ্রিণ ব্যাংকিং সহ ইতিবাচক পরিবর্তনের বিভিন্ন ধারা এগিয়ে নিতে কাজ করে যাচ্ছে। ব্র্যাক ব্যাংক জিএবিভি ফোরামে বাংলাদেশের একমাত্র প্রতিনিধি।

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই) খাতের অর্থায়নে অগ্রাধিকার দেয়ার ভিশন নিয়ে ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড ২০০১ সালে যাত্রা শুরু করে, যা এখন পর্যন্ত দেশের অন্যতম দ্রুত প্রবৃদ্ধি অর্জনকারী একটি ব্যাংক।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে ‘BRACBANK’ প্রতীকে ব্যাংকটির শেয়ার লেনদেন হয়। ১৮৭টি শাখা, ৪৬০টি এটিএম, ৪৫৬টি এসএমই ইউনিট অফিস এবং ৮ হাজারেরও বেশি মানুষের বিশাল কর্মীবাহিনী নিয়ে ব্র্যাক ব্যাংক কর্পোরেট ও রিটেইল সেগমেন্টেও সার্ভিস দিয়ে আসছে।

গত চার বছরে ব্যাংকটি দৃঢ় ও শক্তিশালী আর্থিক পারফরম্যান্স প্রদর্শন করে এখন সকল প্রধান প্রধান মাপকাঠিতেই ব্যাংকিং ইন্ডাস্ট্রির শীর্ষে অবস্থান করছে। এগারো লাখেরও বেশি গ্রাহক নিয়ে ব্র্যাক ব্যাংক বিগত ১৮ বছরেই দেশের সবচেয়ে বৃহৎ জামানতবিহীণ এসএমই অর্থায়নকারী ব্যাংক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

দেশের ব্যাংকিং খাতে সুশাসন, স্বচ্ছতা ও নিয়মানুবর্তিতায় অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে ব্র্যাক ব্যাংক।