গঙ্গা-যমুনা উৎসবে চার নাটক মঞ্চস্থ

279
0

রাজধানীতে চলতে গঙ্গা-যমুনা সাংস্কৃতিক উৎমব। শুক্রবার ছিল এই উৎসবের ৮ম দিন। এদিন ভারতের ১টিসহ মোট ৪টি নাটক মঞ্চস্থ হওয়ার পাশাপশি ছিল পথনাটক, আবৃত্তি, সঙ্গীত ও শিশুদের পরিবেশনা। সকালে ছিল নাটক বিষয়ক সেমিনার।
গঙ্গা-যমুনা সাংস্কৃতিক উৎসবে শুক্রবার সকালে নাটক বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। শিল্পকলা একাডেমির মূল মিলনায়তনের কনফারেন্স হলে সকালে মিনিটে অনুষ্ঠিত হয় সেমিনার। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন নাট্যজন মামুনুর রশীদ। সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব গোলাম কুদ্দুছ এর সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ভারত থেকে আগত নাট্যজন কৌশিক চট্টোপাধ্যায়, মহিত বন্ধু অধিকারী, আবৃত্তিশিল্পী আহকাম উল্লাহ, নাট্যজন আজাদ আবুল কালাম, নাট্যজন আহমেদ ইকবাল হায়দার, জাহিদ রিপন, অপূর্ব কুমার কু-ু, তপন হাফিজ, হানিফ খান, আসাদুল ইসলাম, মোতালেব হোসেন।
বিকেলে নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে ভারতের নাট্যদল বেলঘরিয়া অভিমুখের নাটক ‘কোজাগরী’ মঞ্চস্থ হয়। নাটকটি নাট্যরূপ ও নির্দেশনায় ছিলেন কৌশিক চট্টোপাধ্যায়। এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে মঞ্চস্থ হয় অনির্বাণ থিয়েটারের নাটক ‘জিষ্ণুযারা’ নির্দেশনায় ছিলেন আনোয়ার হোসেন। স্টুডিও থিয়েটার হলে নাট্যম বরিশালের নাটক তিলক মঞ্চস্থ হয়। এটি রচনা ও নির্দেশনায় ছিলেন আশিক সুমন। এদিন মহিলা সমিতি মিলনায়তনে প্রাচ্যনাট-এর নাটক পুলসিরাত মঞ্চস্থ হয়। মনিরুল ইসলাম রুবেলের নাট্যরূপে নির্দেশনা দেন তৌফিকুল ইসলাম ইমন।
এর আগে মুক্তমঞ্চের মঞ্চে অনুষ্ঠান শুরু হয় বিকেলে। সেখানে পথনাটক পরিবেশন করে মৈত্রী থিয়েটার, রঙ্গপীঠ নাট্যদল। দলীয় আবৃত্তি পরিবেশন করে প্রকাশ এর শিল্পীরা। দলীয় সঙ্গীত পরিবেশন করে ভিন্নধারা। দলীয় নৃত্য পরিবেশন করে নৃত্যজন। শিশু কিশোর পরিবেশনায় অংশ নেয় মৈত্রী শিশুদল ।
জাতীয় সঙ্গীত, আবৃত্তি ও নৃত্যকলা মিলনায়তন সন্ধ্যা ৬টায় দর্শনীর বিনিময় পরিবেশিত হয় প্রমা আবৃত্তি সংসদ, চট্টগ্রাম-এর আবৃত্তি পরিবেশনা ‘সোজন বাদিয়ার ঘাট’, বুলবুল একাডেমি অব ফাইন আর্টস (বাফা)-এর নৃত্যালেখ্য আবহমান বাংলা।